WB 6th Pay Commission

WB 6th Pay Commission: রাজ্যে শুধুমাত্র চাকরী প্রার্থীরাই যে বঞ্চনার স্বীকার তা কিন্তু নয়। যারা ইতিমধ্যেই চাকরী পেয়েছেন, এবং যাদের উপর ভর করেই সমস্ত সরকারী কাজ চলছে, রাজ্যের সমস্ত প্রশাসনিক কাজকর্ম চলছে, তারাও ন্যায্য বেতন থেকে বঞ্চিত। পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগের মামলার মতই নিয়োগ সংক্রান্ত আরও কয়েকটি ৬ষ্ঠ বেতন কমিশন নিয়ে হাইভোল্টেজ মামলা রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে।

পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষক,বিদ্যুৎ কর্মী, পুলিশ, পুরকর্মী এবং বিভিন্ন দপ্তরের কর্মীদের বেতন যোগ্যতা অনুযায়ী যা হওয়া উচিত, তার থেকে অনেক কম বেতন পান কর্মীরা। এমনকি সারা দেশে যখন ৭ম বেতন কমিশন চলছে, আর পশ্চিমবঙ্গে সবে ৬ষ্ঠ বেতন কমিশন শুরু হল। আর ডিএ একদম নেই বললেই চলে। আদালত কিছুদিন আগেই বেতন মেটানোর নির্দেশ দিলেও তা মানছে না রাজ্য।

কেন্দ্র সরকারের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে গলা ফাটাচ্ছেন রাজ্য সরকার।কেন্দ্র যেখানে দাম বাড়ালেও মূল্যবৃদ্ধি অনুযায়ী কিন্তু কর্মীদের বেতন দিচ্ছেন। কিন্তু রাজ্য AICPI মেনে বেতন দিচ্ছে না কর্মীদের। তাই রাজ্য সরকারী কর্মীরা মামলা (6th Pay Commission) করছেন।কর্মীরা সেই মামলায় জয়ও পেয়েছেন, আদালত কর্মীদের বেতন মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলেও রাজ্য তা মানছে না।

তবে এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের কর্মীদের একাংশের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আপডেট রয়েছে। রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন নিগম এবং বিদ্যুৎ সংবহন নিগমের আধিকারিকদের ফের বেতন চালু হতে চলেছে। এই নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের বিচারপতি রাজশেখর মান্থা।

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট ইলেকট্রিসিটি বোর্ড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে দুই সংস্থার কর্মীদের বকেয়া DA দেওয়া নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। 2020 সালের মার্চে হাইকোর্ট জানিয়েছিল চার কিস্তিতে কর্মীদের বকেয়া DA মিটিয়ে দিতে হবে। সেই জন্য ছয় মাস সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোর্টের নির্ধারিত সেই সময় পেরিয়ে গেলেও দুই বিদ্যুৎ সংস্থার কর্মীদের বকেয়া DA দেওয়া হয়নি।

তাই ফের আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় 17 জুন হাইকোর্ট (Highcourt) নির্দেশ দেয় ACDSL এবং PDCL এর কর্মীদের বকেয়া DA-র অন্তত 20 শতাংশ 23 জুনের মধ্যে মিটিয়ে দিতে হবে। হাইকোর্ট সেই দিনই কড়া নির্দেশ দেয়, আর যদি এই নির্দেশ পালন না করা হয় তাহলে দুই বিদ্যুৎ সংস্থার শীর্ষকর্তাদের বেতন বন্ধ করে দেওয়া হবে। সেই মতো হাইকোর্ট 25 জুন 5 জন শীর্ষ কর্তার বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল।

দুই বিদ্যুৎ নিগমের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে পঞ্চম বেতন কমিশনের আওতায় কর্মচারীদের এরিয়ার দেওয়া হয়েছে। ষষ্ঠ বেতন কমিশনের বকেয়া DA-র হিসাবের কাজ চলছে।এই কাজ শেষ হলে তারপরেই পুনরায় শীর্ষ কর্তাদের বেতন চালুর নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তাদের এরিয়ার সত্যিই দেওয়া হয়েছে কিনা, তা নিয়ে কেউই সাংবাদিকদের সামনে মুখ খুলতে রাজি নন। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গ সাধারন রাজ্য সরকারী কর্মীদের বকেয়া ডিএ (WB 6th Pay Commission) না দেওয়ায় একাধিক কর্মী সংগঠন ধর্মঘটের রাস্তায় যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.