নভেম্বর মাসে এই ৬ টি প্রকল্প এর টাকা পাবেন। আপনি পাবেন কী?

কোন কোন প্রকল্প এর টাকা দেবে দেখে নিন।

কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার কৃষকদের অর্থনৈতিক দুরাবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে একের পর এক জনমুখি প্রকল্প চালু করেছেন। এই জনমুখি প্রকল্পগুলির মাধ্যমে আমাদের দেশের প্রতিটি কৃষককে বার্ষিক ভাতা প্রদান করা হয়। সরকারি সুত্র মারফৎ জানা গিয়েছে চলতি নভেম্বর মাসে ছটি প্রকল্পের ক্ষেত্রে কৃষকরা আর্থিক ভাবে লাভবান হতে পারেন।

কৃষকরা বছরের পর বছর, মাসের পর মাস, দিনের পর দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে ফসল উৎপাদন করেন। আর সেই ফসল রপ্তানি করেই ভারত প্রতি বছর প্রচুর পরিমাণ অর্থ আয় করে যা ভারতীয় অর্থনীতিকে অনেক খানি শক্তিশালী করে তুলতে সাহায্য করে। কৃষি ক্ষেত্রে সঙ্কট বাড়লে দেশের অর্থনীতিও সঙ্কটাপন্ন হবে।

Advertisement

তাই সব সরকারই কৃষি এবং কৃষকদের প্রতি বেশ সহানুভূতিশীল। তা সে কেন্দ্রের বর্তমান বিজেপিই হোক বা রাজ্যের তৃণমূল সরকার। কৃষকদের সাহায্য করতে সদা তৎপর কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। অর্থাৎ এই মাসেই কৃষকরা বিশেষ আর্থিক সুবিধা পেতে পারেন। চলতি নভেম্বর মাসে সরকার কোন কোন প্রকল্পের ক্ষেত্রে কৃষক ভাইদের আর্থিক সুবিধা দিতে চলেছে চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক-

আমার কর্মদিশা মাধ্যমে বাংলার ঘরে ঘরে চাকরি দেবে সরকার, কিভাবে আবেদন করবেন জানুন।

Advertisement

১)প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা (PM kisan mandhan yojana)
এই যোজনা আওতায় বয়স্ক কৃষকদের মাসিক পেনশন দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। এই যোজনার অধীনে কৃষকরা বছরে ৩৬ হাজার টাকা পেয়ে থাকেন। এই যোজনার কৃষকদের নাম নথিভুক্ত করার বয়সসীমা ১৮ বছর থেকে ৪০ বছর পর্যন্ত।

২)কিষাণ ক্রেডিট কার্ড (Kisan credit card)
এই যোজনা আওতায় দেশের প্রান্তিক চাষি ভাইরা তাদের কৃষিকাজের জন্য সরকারের ঘর থেকে তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত সরকারি ঋণ পেতে পারেন। ১৮ থেকে ৭৫ বছরের যে কোনও কৃষক সহজ শর্তে এই ঋণের সুবিধা পেতে পারেন।

৩)কৃষক বার্ধক্য ভাতা (Krishak Bardhyaka Vata)
যে সকল কৃষকরা বয়সের ভারে কৃষিকাজে অক্ষম হয়ে পড়েছেন তাদেরকে এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রত্যেক মাসে ১০০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হয়ে থাকে, তবে কৃষকের বয়স ৬০ বছর বা তার বেশি হতে হবে। এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গ সরকার দ্বারা স্বীকৃত।

৪)কৃষক আত্মা প্রকল্প –
এই যোজনা মাধ্যমে কৃষকরা সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা ও সর্বোচ্চ ১,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত সরকারি সাহায্য পেতে পারেন। এর পাশাপাশি এই প্রকল্পের মাধ্যমে মাছ চাষী এবং পশুপালকদেরও সহায়তা করা হয়ে থাকে। কেন্দ্র-রাজ্য এই প্রকল্পের মাধ্যমে মূলত কৃষি ক্ষেত্রে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে চাষের ফলন বৃদ্ধি এবং চাষের খরচ কমানোর মাধ্যমে আয় বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কৃষকদের সাহায্য করা হয়ে থাকে।

৫)বাংলা শস্য বীমা –
এই যোজনাটির মূলত পশ্চিমবঙ্গ সরকারের। রাজ্যের প্রান্তিক কৃষক ভাইরা বছরে দুবার খারিফ মরশুমে এবং রবি মরশুমে এই বাংলা শস্য বিমার অধীনে অনুদান পেয়ে থাকেন। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফসল নষ্ট হয়ে গেলে ক্ষতিপূরণ হিসেবে কিছু টাকা ফেরত পান তা নিশ্চিত করার জন্যই এই বাংলা শস্য বীমা প্রকল্পটি কার্যকরী করা হয়েছে।

৬)ধান ক্রয় বা Paddy Purchase-
এই যোজনা এর অধীনে পশ্চিমবঙ্গের কৃষকরা নিজেদের কৃষিজমিতে উৎপন্ন ধান সরকারকে বিক্রি করে যথেষ্ট টাকা উপার্জন করতে পারেন। যদিও একজন কৃষক কত টাকা পাবেন তা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করছে তার জমিতে উৎপন্ন হওয়া ধানের পরিমাণের ওপর।
এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবরের আপডেট সবার আগে পেতে হলে এই ওয়েবপোর্টালটি ফলো করতে ভুলবেন না।
Written by Sunita Mallick.

বাড়িতে বসেই হাতে পেয়ে যাবেন Ration Card, কিভাবে পাবেন বিস্তারিত জেনে নিন

Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *