Puja Fashion

Puja Fashion: লোকমুখে প্রচলিত ‘বাঙালীর বারো মাসে তেরো পার্বণ’।বাঙালি চিরকালই উৎসব প্রেমী। সারা বছর জুড়েই বাঙালির জীবনে নানা উৎসব লেগেই থাকে। তবে এতো উৎসবের মধ্যেও বাঙালির সবচেয়ে প্রিয় উৎসব হল ‘দুর্গোৎসব’। কাশ বনের দোলায় দেবীপক্ষের সূচনা বাঙালির মনকে আলোড়িত করে। মহালয়ার শুভ বন্দনাতে বাঙালির দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান ঘটে।

kolkata durga puja 2022: কলকাতার ৩০টি পুজোর মধ্যে কোনগুলি ইউনেস্কোর গন্তব্য তালিকায় রাখা হবে দেখুন

বাঙালির সমগ্র প্রাণ এই পূজার মধ্যে নিহিত থাকে। বর্ষার কালো মেঘ সরিয়ে শরতের রোদ্দুর উকি দিলেই বাঙালির মন হিসেব কষতে শুরু করে দেয় মা দুর্গার আগমনের আর কতদিন বাকি। শরৎ এর মেঘ আর শিউলির গন্ধে দশভুজার আগমনকে উন্মুক্ত চিত্তে স্বাগত জানায় বাঙালি।আর মাত্র কয়েকটা দিনের অপেক্ষা। গণেশ পুজো চলে আসা মানেই পুজোর ঢাকে কাঠি পড়ে যাওয়া।

কথিত আছে চার ছেলেমেয়েকে নিয়ে উমা (lima) কৈলাশ (Knibaal) থেকে মর্তে বাপের বাড়ি এসে পাঁচ দুন থেকে আবার শ্বশুর বাড়ি ফিরে যান। ঘরের মেয়েকে আদরে যত্নে ভরিয়ে জাকজমক পূর্ণ ভাবে উৎসব উদযাপন করেন গোটা বিশ্বের বাঙালিরা।আশ্বিন মাসে প্রায় দশ দিন ধরে দুর্গা পুজোর উৎসব পালিত হয়। যদিও প্রকৃত অর্থে ষষ্ঠীর দিন থেকে উৎসব শুরু হয়। যুগ যুগ ধরে বিশ্বাস করা হয় যে এদিনই দেবী দুর্গা মর্তে এসেছিলেন।

Love life of Rashmika: রাশমিকা মান্দানা নিজের অতীত প্রেম জীবন নিয়ে প্রথম বার মুখ খুললেন, তার অতীত সম্পর্কে জেনে নিন

বাঙালীর বড় উৎসব যেহেতু দুর্গাপুজো তাই এই পুজোতে নতুন জামাকাপড় (Puja Fashion) কিনবে না তা কি আর হয়। হাতে আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। তাই ইতিমধ্যেই পুজোর কেনাকাটা শুরু হয়ে গিয়েছে। শপিং মলগুলিতে পুজোর জামাকাপড় কিনতে ভিড় জমাচ্ছেন অনেকেই। পুজোর ক’টা দিনের জন্য সারা বছর অপেক্ষা করে থাকেন বাঙালিরা।

আর পুজো মানেই নতুন জামাকাপড়ে সেজেগুজে প্যান্ডেল হপিং। কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে চুটিয়ে আড্ডা। আর দুর্গাপুজো মানে তো কেবল নিজের জন্য কেনাকাটা নয়, পরিবার আছে, আত্মীয় স্বজন আছে,তাদের জন্যও টুকটাক কেনাকাটা করতেই হয়।তবে শুধু দুর্গাপুজো বলেই নয়, বর্তমানে আমাদের যখনই জামাকাপড় কেনার প্রয়োজন মনে হয় তখনই আমরা প্রয়োজনের তুলনায় হয়ত অনেক বেশি জামাকাপড় কিনি।তবে দুর্গাপুজোর কেনাকাটা করার ব্যাপকটা একটু হলেও আলাদা।

Study Attentively: পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারছেন না?মনোযোগী হবার বিজ্ঞান সম্মত সহজ উপায় জানুন

ভ্যাপসা গরম, রোদ, বৃষ্টির চোখরাঙানি যাই-ই থাক না কেন পুজোর বাজারে কোনও খামতি নেই। কেনাকাটার জন্য ইতিমধ্যেই দোকানো দোকানে ভিড় উপচে পড়ছে। মাসের শুরুতে শনি আর রবিবারে পুজোর বাজার জমজমাট। বিলিং কাউন্টারে লম্বা লাইন। ফুটপাথ থেকে শপিং মল সবই যেন পুজোর আনন্দে সেজে উঠেছে।

Dear Lottery Wining Tips: পশ্চিমবঙ্গ ডিয়ার লটারি জেতার গোপন কৌশল ফলো করে ম্যাজিক দেখুন

গত দু’বছর কোভিডের কারণে পুজোর আনন্দ স্মাল ছিল। কেনাকাটি, ঠাকুর দেখা প্রচুর যে ভিড় ছিল তেমনটা নয়। কিন্তু এবার সেই চিত্র পুরোপুরি বদলে গিয়েছে। আবহাওয়া যতই প্রতারণা করুক না কেন, যতই ফ্যানের সামনে বসেও দরদরিয়ে ঘাম হোক না কেন পুজোয় নতুন জামা-তো চাই। প্রতি বছরই পুজোর ফ্যাশানে বেশ কিছু জামা ট্রেন্ডিংয়ে থাকে। এবারের পুজোর টপ ফ্যাশান ট্রেন্ডে কোন কোন পোশাক রয়েছে দেখে নেওয়া যাক-

১)চিকনকারী স্ট্রেট কুর্তা:-

কুর্তা তো ফ্যাশানে বহু বছরই রয়েছে তবে এবার ফ্যাশানে ইন হল এই চিকনকারী স্ট্রেট কুর্তা। অনলাইন থেকে দোকান সবেতেই ভরপুর স্টক রয়েছে। এমনকী ফুটপাথের দোকানেও দারুণ দারুণ সব কালেকশন রয়েছে। লেমন ইয়লো, সবুজ, নীল, হলুদ, পিংক একাধিক রঙে পাওয়া যাচ্ছে চিকনকারীর কুর্তা। কেউ পরছেন সিগারেট প্যান্ট দিয়ে, কেউ পালাজো। আবার অনেকে জিন্সের সঙ্গেও পরছেন। এই রকম কুর্তার সঙ্গে কিন্তু হিল জুতো মাস্ট।

২)কো- অর্ড সেট:-

কম্বিনেশন নয়, একই রঙের টপ এবং প্যান্টস এখন ট্রেন্ডিং। একই রঙের আপার আর লোয়ার এই সব পোশাককে কো-অর্ড সেট বলা হয়। ফ্লোরাল প্রিন্টের এই কো-অর্ড সেট হয় আবারব এমব্রয়ডারিতেও আসে। কিছু ক্ষেত্রে প্রিন্ট থাকে। সিগারেট প্যান্ট বা ফ্লেয়ারড ট্রাফজার্স সঙ্গে ফ্লোরাল ডিটেলিং- এই রকম কো-অর্ড সেটই এখন বেশি চলছে।

৩)ক্রেপ ড্রেস উইথ জ্যাকেট:-

সাদা, সবুজ আর নীল এবার ট্রেন্ডিং রং। বেশিরভাগ পোশাকের মধ্যেই ঘুরে ফিরে এই সব রং আসছে। ক্রেপ অর্থাৎ প্রচুর প্লিট দেওয়া ড্রেসও এবার ট্রেন্ডিং। সঙ্গে বাহারি জ্যাকেট। কখনও লং জ্যাকেট, কখনও বোহো জ্যাকেট কখনও কাফতান জ্যাকেট সবই রয়েছে এবারের তালিকায়। জ্যাকেট দিয়ে নানা রকম স্টাইলিংও করা যায়।ওয়েস্টার্ন কোনও পোশাকের সঙ্গেও পরতে পারেন।

৪)ধোতি প্যান্ট ও প্রিন্টেড কাফতান জ্যাকেট:-

এই বছর জুড়ে শুধুই যেন কাফতান। কাফতান ড্রেস, কাফতান টপ, শ্রাগ থেকে শুরু করে এবার জ্যাকেটও। নানা ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে এই কাফতান জ্যাকেট। ধোতি প্যান্ট আগেও ছিল। এবার প্রিন্টে রকমফের এসেছে। ধোতি প্যান্টের সঙ্গে নানা স্টাইলের টপ আর প্রিন্টেড কাফতান জ্যাকেট দিয়ে অনেকেই ফ্যাশান করছেন। এই লুকে অনেকটা ইন্দোওয়েস্টার্ন ছোঁয়া থাকে। ফাঙ্কি ইয়াং রিং-এর সঙ্গে দেখতেও বেশ ভাল লাগে।

৫)অরগ্যাঞ্জা শাড়ি:-

যতই টপ, কুর্তি, জিন্স হোক না কেন পুজোতে মেয়েরা একটা শাড়ি কিনবেনা এ আবার হয় নাকি। আর তাই শপিং ব্যাগে শাড়ি থাকবেই। সেই শাড়ির তালিকায় প্রথমেই রয়েছে অরগ্যাঞ্জা। এবার অধিকাংশই এই শাড়িতে মজেছেন। অরগ্যাঞ্জায় নানা রং রয়েছে। সেই সঙ্গে ফ্যাব্রিকও পাতলা আর আরামদায়ক। আর তাই আপনিও এই শাড়ি বেছে নিতে পারেন। দামেও বেশ সস্তা। পকেট বাঁচিয়ে পুজোর ফ্যাশান (Puja Fashion) করতে আপনাকে আর কে আটকায়।

By Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.