বিচারপতির নির্দেশে বিপদ বাড়ল বেআইনিভাবে নিয়োগ প্রাপ্তদের, ৭ নভেম্বরের মধ্যে চাকরি ছাড়তে হবে! | Primary tet 2014 case

Primary tet 2014 case: স্কুল সার্ভিস কমিশন সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলায় একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে উঠে আসছে। নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় কিছুদিন আগেই প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ঠ অভিনেত্রী অর্পিতা মুখোপাধ্যায় গ্রেফতার হন। এমনকি তাদের ফ্ল্যাট থেকে কোটি কোটি নগদ টাকা এবং সোনা গয়না উদ্ধার হয়েছে। এই ঘটনায় সর্বত্র ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। শুধু তাই নয়, একইসঙ্গে আরো একাধিক ক্ষেত্রে দুর্নীতির চিত্র সামনে উঠে আসছে।

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় একের পর এক অভূতপূর্ব রায় দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা অধিকারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার পাশাপাশি অন্যান্য একাধিক কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছেন অভিজিৎবাবু। আবার অপরদিকে বহু চাকরি প্রার্থীদের নিয়োগের নির্দেশ পর্যন্তও দিয়েছেন। এই কারনে অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই সকলের নজরে এসেছেন।

Advertisement

আর এবার শিক্ষামন্ত্রীর প্রস্তাব খারিজ করে এসএসসি দুর্নীতি (SSC Scam ) মামলায় কড়া নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যে এসএসসির মাধ্যমে বেআইনিভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীরা কাজ থেকে স্বেচ্ছায় সরে না দাঁড়ালে তাঁদের জীবনে চরম বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। এমনই নির্দেশ দিলেন বিচারপতি।

বিরাট সুখবর! পুজোর পরেই উচ্চপ্রাথমিকের ইন্টারভিউ, জানাল স্কুল সার্ভিস কমিশন | Upper Primary TET interview date

Advertisement

এক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের প্রস্তাবকে সটান খারিজ করে দিয়ে বিচারপতি জানিয়েছেন দুর্নীতির প্রশ্নে বিন্দুমাত্র নরম মনোভাব দেখাবেন না। বেআইনি ভাবে অযোগ্য নিয়োগকারীদের কোনও ভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না। বিচারপতি কোনও রকম দুর্নীতির সাথে আপস করতে রাজি নন। তিনি পরিষ্কারভাবে বলেছেন ঘুষ দিয়ে যাঁরা চাকরি পেয়েছেন, তাঁরা নিজেরাই চাকরি থেকে পদত্যাগ করুন।

রাজ্য সরকারের কোন প্রস্তাব খারিজ হল?

মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু জানিয়েছিলেন এসএসসিতে ব্যতিক্রমী নিয়োগ প্রাপ্তদের চাকরিতে রেখে দিয়েই বঞ্চিতদের নিয়োগ করতে চায় রাজ্য সরকার। তার জন্য ৫,২৬১ টি শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীর নতুন পদ তৈরি করা হবে। শিক্ষামন্ত্রী এই প্রসঙ্গে বলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী চান না কারোর চাকরি যাক। কারণ একজনের চাকরি যাওয়া মানে শুধু তিনি নয়, তাঁর পরিবারও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

মাধ্যমিক পাশে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার ব্লকে ও গ্রামে ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন ও ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে নিজের এলাকায় স্বাস্থ্য দপ্তরের নিয়োগ

কিন্তু বুধবার এসএসসি সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে শিক্ষা মন্ত্রীর এই প্রস্তাব পুরোপুরি নাকোচ করে দেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি বলেন যারা বেআইনিভাবে নিযুক্ত হয়েছে তাদের প্রতি কোনও রকম নরম মনোভাব দেখানো চলবে না। তাদেরকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করতেই হবে। এরপরই বিচারপতি অভিযুক্ত সরকারি কর্মীদের উদ্দেশ্যে চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দেন

বিচারপতি কি নির্দেশ দিয়েছেন?

বুধবার এসএসসি মামলার শুনানিতে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এসএসসির মাধ্যমে বেআইনিভাবে চাকরিতে নিযুক্ত হওয়াদের আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যে স্বেচ্ছায় চাকরি থেকে ইস্তফা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এই প্রসঙ্গে বিচারপতি বলেন যারা অন্যায়ভাবে চাকরি পেয়েছে তারা নিজেরা ছেড়ে চলে যাক। বিচারপতি এও জানান অভিযুক্তরা যদি স্বেচ্ছায় ইস্তফা না দেয়,তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

চাকরি না ছাড়লে তাদের বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ নেওয়ার হুশিয়ারি দিলেন?

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন সময়ের মধ্যে ইস্তফা না দিলে অপরাধ প্রমাণের পর তাদের বরখাস্ত করা হবে। সেই সঙ্গে আর যাতে কোনও সরকারি চাকরি পেতে না পারে, তার ব্যবস্থাও আদালত করবে বলে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়ে দেন।

বিচারপতির এই নির্দেশের পর এসএসসির গ্রুপ সি, গ্রুপ ডি পদের অশিক্ষক কর্মী এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক পদে যারা বেআইনিভাবে নিযুক্ত হয়েছেন তাদের চাকরি ধরে রাখার শেষ আশাটাও চলে গেল বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল। নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় বিচারপতির নজিরবিহীন নির্দেশ।

Railway Recruitment 2022 মাধ্যমিক পাশ যোগ্যতায় রেলে গ্রুপ ডি পদে ৩১১৫ শূন্যপদে নিয়োগ করা হবে

এসএসসি দুর্নীতি মামলায় কলকাতা হাইকোর্টে রিপোর্ট জমা দিয়েছে সিবিআই। সেই রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। সিবিআই-র সেই রিপোর্ট দেখে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় একপ্রকার স্তম্ভিত হয়ে গেছেন। রিপোর্টে এসএসসির
মেধা তালিকায় কীভাবে কারচুপি করা হয়েছিল তা বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

সেই রিপোর্টে আছে পরীক্ষায় সাদা খাতা জমা দিয়েও কেউ কেউ ৫৩, কেউ আবার ৬০ নম্বর পেয়েছেন। এমনকি এরা বাকিদের টপকে মেধা তালিকায় উপরে উঠে চাকরিও করছেন। কারচুপি করে মেধা তালিকায় জায়গা পেয়েছেন অন্তত ৮ হাজার জন।এসএসসি-র হার্ডডিস্কে থাকা খাতার সঙ্গে সার্ভারের আপলোড হওয়া নম্বরের বিস্তর ফারাক রয়েছে। এসএসসির সার্ভারেও জালিয়াতি করা হয়েছে বলে সিবিআইয়ের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে।

Written by Probir Biswas

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের ফলো করুন

 Google News | | টেলিগ্রাম চ্যানেলে

Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Related Articles