PM Health Scheme

PM Health Scheme: ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সরকা বিসওয়াস’ – এই মন্ত্রে অনুপ্রাণিত হয়ে মোদী প্রশাসনিক ব্যবস্থায় পরিবর্তন এনেছেন। যার উদ্দেশ্যই হল – সর্বব্যাপী উন্নয়ন এবং দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ে তোলা। ২০১৪-১৯ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মোদী প্রথমবার দায়িত্ব পালন শুরু করেন। দ্বিতীয় বার ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে ২০১৯ সালের ৩০শে মে শপথ নেন মোদী।

WB Ration Big Update : অত্যন্ত খারাপ খবর! বন্ধ হল বিনামূল্যে রেশন, এখন চাল,ডাল ও গম পাবে কীভাবে?

ক্ষমতায় আসার পর মোদী বিভিন্ন সরকারি কর্মসূচি ও পরিষেবাগুলির সুবিধা সাধারন মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে তিনি দ্রুততা ও দক্ষতার সাথে কাজ করে চলেছেন। কেন্দ্র সরকার সাধারণ মানুষের স্বার্থে বিশেষ কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। প্রধানমন্ত্রী মোদি ভারতীয় নাগরিকদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক কল্যাণের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প চালু করেছেন। এই প্রকল্পগুলি (PM Health Scheme) ভারত জুড়ে বাস্তবায়িত হয়েছে।

বহু প্রতীক্ষিত মামলার রায়দান হল! মানিক ভট্টাচার্যের আবেদন ও ২৭৩ জনের বাতিল চাকরি ফেরানোর আর্জি খারিজ

দরিদ্র মানুষকে বিনামূল্যে রান্নার গ্যাসের সংযোগ পৌঁছে দিতে ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার সূচনা করেন। এই সুবিধা পেয়েছেন দেশের ৭ কোটি মানুষ। যাঁদের বেশিরভাগই মহিলা, তাঁরা বিশেষভাবে উপকৃত হয়েছেন। এছাড়াও জনধন যোজনা চালু করে সাধারন মানুষকে আরও এক কদম এগিয়ে নিয়ে এসেছেন মোদী।

এছাড়াও কৃষকদের সাহায্য এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী কৃষক সন্মান নিধি যোজনা ও কিষাণ ট্রাক্টর যোজনা চালু করেছেন। এমনকি সাধারণ জনগণকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সুবিধা প্রদানের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে আয়ুষ্মান ভারত কার্ড চালু করেছেন।

Lottery Price Winning Tricks: এবার এই তিনটি পদ্ধতিতে লটারি কাটলেই পুরস্কার জিতবেন

দেশের সার্বিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে সর্বাগ্রে সুস্বাস্থ্য দরকার। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থানের মতোই সুস্বাস্থ্যও মানুষের ন্যূনতম চাহিদা। কিন্তু ভারতের মতো গরীব দেশে খাবার জোটাতেই হিমশিম খেয়ে যায় দেশের এক বৃহদাংশের মানুষ। তাই স্বাস্থ্য পরীক্ষা চিকিৎসা এসব তো তাদের কাছে বিলাসিতা। দেশের দরিদ্র মানুষের সুস্বাস্থ্য এবং বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দিতেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে শুরু করা হয় আয়ুষ্মান ভারত (Ayushman Bharat) প্রকল্প।

সারা দেশ জুড়ে কেন্দ্রীয় সরকারের চিকিৎসা পরিষেবা প্রকল্পে আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের সূচনা করা হয়।এই কার্ডের মাধ্যমে দেশের মানুষদের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্ৰীয় সরকার।তবে আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের সুবিধা পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম-কানুন বেঁধে দেয় কেন্দ্র।এবার আরও উচ্চ মানের চিকিৎসা পরিষেবা এবং রোগীর হয়রানী কমাতে সরকারী স্বাস্থ্য প্রকল্পের নিয়ম বদল করতে চলেছে সরকার।

Class VIII Scholarship: অষ্টম শ্রেণীতে উত্তীর্ণদের জন্য মাসিক ১০০০ টাকা করে দেওয়া হবে, আবেদন সহ বিস্তারিত জানুন

কেন্দ্রের পক্ষ থেকে আয়ুষ্মান ভারত কার্ড চালু করার পরেও আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের প্রবেশ অনেক রাজ্যেই হয়নি। এই সমস্ত রাজ্য সরকার একাধিক কারণ দেখিয়ে আয়ুষ্মান (PMJAY Health Scheme) ভারত কার্ড গ্রহণ করেনি। তবে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে যেমন স্বাস্থ্যসাথী স্বাস্থ্য প্রকল্প (Health Scheme) রয়েছে। বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সূচনা করা হয়েছে।

তবে এই কার্ডে সব প্রাইভেট হাস্পাতালে চিকিৎসা হয়না। তাই PMJAY কার্ডে সমস্ত হাসপাতাল কভার করা হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত 31 টি রাজ্য এই আয়ুষ্মান ভারত কার্ড প্রকল্পে সামিল হয়েছে। তবে বেশ কিছু রাজ্য এই প্রকল্প গ্রহণ করেনি। পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি এবং ওড়িশা কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্পে প্রবেশ করেনি। পাশাপাশি তামিলনাড়ু এবং তেলেঙ্গানা এখনো পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ুষ্মান কার্ড (PMJAY) প্রকল্পে যোগ দেয় নি।

WB Volunteer Recruitment 2022: চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুখবর!দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর রাজ্যে আবারো প্রচুর ভলেন্টিয়ার নিয়োগ

তবে এবার কেন্দ্রীয় সরকার আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের বদলে আয়ুষ্মান কার্ডের (Ayusman Card Health Scheme) সূচনা করতে চলেছে। এই কার্ডে কেন্দ্র (PMJAY) এবং রাজ্য, দুই সরকারের লোগো (Logo) থাকবে। উভয় সরকারের স্বাস্থ্য প্রকল্পকেই একত্রীকরণ করা হবে। আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের বদলে আয়ুষ্মান কার্ড আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তার কাজ জোরকদমে শুরু হয়েছে। আর তা পশ্চিমবঙ্গ গ্রহন করতে পারে।

কেন্দ্র আয়ুষ্মান ভারত কার্ড তৈরীর সময়ে দেশের বহু রাজ্য এই প্রকল্পে যোগ না দেওয়ার পরেও এতদিন পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। তবে এবার আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের বদল ঘটিয়ে আয়ুষ্মান কার্ড (Health Scheme) তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। যেখানে সমস্ত স্বাস্থ্য প্রকল্প একত্রীকরণ করা হবে।

এই কার্ডে PMJAY Health Scheme এবং রাজ্য দুই সরকারেরই লোগো রাখার জন্য সমান জায়গা বরাদ্দ করা হয়েছে। ইংরেজি এবং স্থানীয় ভাষায় আয়ুষ্মান কার্ড তৈরি করা হবে। তথ্য অনুযায়ী 17 ই আগস্ট পর্যন্ত 18.82 কোটি মানুষের ভেরিফিকেশন হয়ে গিয়েছে এবং 14.12 কোটি মানুষের আয়ুষ্মান কার্ড ইস্যু করা হয়ে গিয়েছে। দেশের সমস্ত স্বাস্থ্য সংক্রান্ত প্রকল্পগুলিকে এক ছাতার তলায় আনতে চাইছে ভারত সরকার।

By Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.