Lakshmi Bhandar prakalpa

Lakshmi Bhandar prakalpa: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২১ এর নির্বাচনে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার পর পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ মানুষের জন্য বেশ কিছু জনকল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করেছিলেন। আর এই প্রকল্পগুলির মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য প্রকল্প হলো লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প(Lakshmi Bhandar prakalpa)। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্য সরকারের তরফে মূলত রাজ্যের সমস্ত গৃহলক্ষ্মীদের ক্ষমতায়নের স্বার্থে এই প্রকল্প চালু করা হয়েছিল।

Swasthya Sathi card: স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে রাজ্যবাসীর জন্য বিরাট সুখবর! নতুন কি কি সুবিধা পাবেন দেখুন

ভোটের আগেই এই প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃতীয় বার ক্ষমতায় এসে তা বাস্তবায়ন করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের গৃহবধূদের আর্থিক ভাবে সহায়তা করতে ১ সেপ্টেম্বর থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প (Lakshmi Bhandar prakalpa) চালু হয়।এই প্রকল্পের অধীনে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত মহিলাদের ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে।তা সেই মহিলা জেনারেল ক্যাটাগরিভুক্ত হন কিংবা তপশিলি জাতি ও উপজাতি, ওবিসি সম্প্রদায়ভুক্ত হন।

WB School Uniform: স্কুল পড়ুয়াদের ইউনিফর্ম নিয়ে বড় পদক্ষেপ নবান্নের, বিপাকে শিক্ষকেরা

তবে এই প্রকল্প নিয়েও বিতর্কের শেষ নেই। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় এই প্রকল্প নিয়ে একাধিক অভিযোগ উঠেছে। প্রশাসনের তরফে রাজ্য সরকারকে অভিযোগ জানানো হয়েছে লক্ষ্মীর ভান্ডার নিয়েও নানা প্রকার দুর্নীতি হচ্ছে। কখনও অভিযোগ উঠেছে যে মহিলারা তাদের বয়সের নথি জাল করে ২৫ বছর হওয়ার পূর্বেই লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান নিচ্ছেন। আবার কখনও অভিযোগ উঠেছে একই মহিলা একাধিক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান নিচ্ছেন।

ATM Transaction Limit: এটিএম থেকে আর ফ্রিতে টাকা তোলা যাবে না, RBI এর জারি করা নতুন নিয়ম, এখুনি পড়ুন

আর এই সকল অভিযোগগুলি মাথায় রেখে রাজ্য সরকারের তরফে প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল যাতে তারা লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান প্রদানের পূর্বে যথেষ্ট ভালোভাবে মহিলাদের সমস্ত নথিপত্র চেক করে দেখেন। কিন্তু বর্তমানে লক্ষ্মীর ভান্ডার সংক্রান্ত এরূপ দুর্নীতি বন্ধ করার জন্য রাজ্য সরকারের তরফে কতগুলি বিশেষ নিয়ম নিয়ে আসা হয়েছে।যার জেরে আগামী মাস অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাস থেকে অনেক মহিলা লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা পাবেন না।

আর এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই এই বিষয়ে মহিলাদের মধ্যে নানারকম গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কারা, কেন লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা পাবেন না এই সব প্রশ্ন উঠছে। আর তাই আজ সমস্ত মহিলাদের সুবিধার্থে লক্ষ্মীর ভান্ডারের নতুন নিয়ম সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য আলোচনা করতে চলেছি। সেপ্টেম্বর মাস থেকে কারা লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা পাবেন না, কেন লক্ষ্মী ভান্ডারের টাকা পাবেন না ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি জেনে নিন-

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার কোন কোন নতুন নিয়ম চালু করল:-

১)অনেক ক্ষেত্রেই পরিলক্ষিত হয়েছে যে একাধিক মহিলার লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান একটি মাত্র ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার হচ্ছে। অর্থাৎ একাধিক মহিলার লক্ষ্মীর ভান্ডারের আবেদনপত্রে একটিই মাত্র অ্যাকাউন্টের নম্বর ছিল। এই সকল মহিলারা সেপ্টেম্বর মাস থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবেন না।

২)যে সকল মহিলার অ্যাকাউন্টে নির্দিষ্ট হিসেবে বাইরে লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা ঢুকছে সেই সকল মহিলারা আগামী মাস অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাস থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবেন না।

৩)অনেকক্ষেত্রে দেখা গেছে মহিলারা লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা পাওয়ার জন্য বিভিন্ন জাল নথি জমা দিয়েছেন। আর এই জাল নথিগুলির মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য নথি হলো জাতিগত শংসাপত্র বা কাস্ট সার্টিফিকেট। যেসকল মহিলারা জাল কাস্ট সার্টিফিকেট জমা দিয়েছেন তাদের লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান দেওয়া বন্ধ করা হবে।

৪)অনেক ক্ষেত্রেই কোন এক অজানা কারণবশত জেনারেল এবং ওবিসি ক্যাটাগরিভুক্ত মহিলারা তপশিলি জাতি এবং উপজাতি সম্প্রদায়ভুক্ত মহিলাদের মতো প্রতিমাসে ১০০০ টাকা করে অনুদান পেয়েছেন। বর্তমানে ওই সকল মহিলাদের লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান দেওয়া বন্ধ করা হবে।

৫)যেসকল মহিলাদের বয়স এখনও পর্যন্ত ২৫ হয়নি কিন্তু লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবার জন্য তারা বয়সের প্রামাণ্য জাল নথি জমা দিয়েছেন তারা সেপ্টেম্বর মাস থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবেন না।

৬)যে সকল মহিলাদের আধার কার্ডে গলদ রয়েছে অথবা জাল আধার কার্ড জমা দিয়েছেন তারা আগামী মাস অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাস থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবেন না।

৭) যে সকল মহিলাদের আধার কার্ড এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্টের নাম সম্পূর্ণভাবে আলাদা তাদের বর্তমানে টাকা দেওয়া হচ্ছে।তারাও লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান পাবেন না।

৮)যে সকল মহিলাদের ব্যাংকের KYC আপডেট করা নেই তাদের KYC আপডেট করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে। KYC আপডেট না থাকার জন্য এই সমস্ত মহিলাদের অ্যাকাউন্টে রাজ্য সরকারের তরফে লক্ষ্মীর ভান্ডারের অনুদান দেয়া সম্ভব হচ্ছে না তাই যত শীঘ্রই সম্ভব যাদের KYC আপডেট করা নেই তাদের KYC আপডেট করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

৯)যে সমস্ত মহিলারা অন্য ভাতার (যেমন:- বিধবা ভাতা) আওতায় অনুদান পাওয়ার পাশাপাশি লক্ষ্মীর ভান্ডারের অধীনেও অনুদান পাচ্ছেন, তারা আগামী মাস থেকে লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা পাবেন না ।

১০)যে সকল মহিলারা সরকারি চাকরি থাকা সত্ত্বেও লক্ষীর ভান্ডারের অনুদান পেয়েছেন, সেপ্টেম্বর মাস থেকে তাদের লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা দেওয়া বন্ধ করা হবে।

১১)যে মহিলারা লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদনের পর সদ্য চাকরি পেয়েছেন, বর্তমানে তারা আর লক্ষ্মীর ভান্ডারের অধীনে টাকা পাবেন না।

By Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.