kolkata durga puja 2022: কলকাতার ৩০টি পুজোর মধ্যে কোনগুলি ইউনেস্কোর গন্তব্য তালিকায় রাখা হবে দেখুন

kolkata durga puja 2022: আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা। তারপরেই শুরু হবে বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো। এখন থেকেই যেন আকাশে বাতাসে পুজোর গন্ধ ভেসে আসছে। নদীর ধারে কাশ ফুলে হালকা হালকা রেশ দেখা যাচ্ছে। মায়ের আগমণের প্রাক্কালে ধরিত্রী যেন নিজেকে সাজিয়ে তুলছে। দুর্গাপুজোর আর কতদিন বাকি আছে ইতিমধ্যেই তার তারিখ গোনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

Love life of Rashmika: রাশমিকা মান্দানা নিজের অতীত প্রেম জীবন নিয়ে প্রথম বার মুখ খুললেন, তার অতীত সম্পর্কে জেনে নিন

Advertisement

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজোর কথা বললে প্রথমেই কলকাতার ঝা চকচকে দুর্গাপূজার কথা মাথায় আসে। কলকাতার প্রথম দুর্গাপূজা হয়েছিল ১৬১০ সালে বড়িশার রায় চৌধুরী পরিবারে। কিন্তু বর্তমানে কলকাতার দুর্গাপূজার সংখ্যা হয়ত গুনে শেষ করা যাবে না। কলকাতার মণ্ডপ সজ্জা এবং থিম দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করে।

পূজার দিনগুলিতে স্কুল, কলেজ, অফিস, আদালত বন্ধ থাকে। পুজোর দিনগুলিতে কলকাতা শহর (kolkata durga puja 2022) আলোক সজ্জায় সেজে ওঠে। কলকাতার দুর্গাপূজাকে পূর্ব গোলার্ধের রিও কার্নিভাল বলে অভিহিত করা হয়। কলকাতার কুমোরটুলির প্রতিটি গলিতেই ঠাকুর তৈরির ঘর রয়েছে। এই ঘরগুলোতেই বিভিন্ন দেবদেবীর মূর্তি সারিবদ্ধভাবে রাখা থাকে।

Advertisement

Study Attentively: পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারছেন না?মনোযোগী হবার বিজ্ঞান সম্মত সহজ উপায় জানুন

কলকাতার পুজোকে ইউনেস্কো ইতিমধ্যেই হেরিটেজ তকমা দিয়েছে। এমনকি ইউনেস্কোর প্রতিনিধিরা ১ সেপ্টেম্বর কলকাতার প্রাক পুজো শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছেন। বাংলার এই ঐতিহ্যের অংশ ও সাক্ষী হওয়ার সুযোগ হারাতে চাননি তাঁরা। এদিন ইউনেস্কোর প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন তিন সপ্তাহ পরে দলবল নিয়ে তাঁরা ফের আসছেন। অর্থাৎ কলকাতার দুর্গাপুজোর মণ্ডপগুলি ঘুরে দেখতে পারে ইউনেস্কো।

Dear Lottery Wining Tips: পশ্চিমবঙ্গ ডিয়ার লটারি জেতার গোপন কৌশল ফলো করে ম্যাজিক দেখুন

দুর্গাপুজোর স্বীকৃতি উদযাপন মঞ্চে উপস্থিত ইউনেস্কোর প্রতিনিধিরা বৃহস্পতিবার এই ইঙ্গিত দেওয়ার পরেই বেশ কিছু পুজো কমিটিগুলির মধ্যে তৎপরতা শুরু হয়ে গিয়েছে। কেউ বেশি লোক লাগিয়ে ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করে ফেলতে চাইছেন। কেউ আবার রাত-দিন কাজ চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন।

ইউনেস্কোর প্রতিনিধিরা কোন কোন মণ্ডপে ঘুরবেন, সেই তালিকায় নাম তুলতে কমিটিগুলির মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে গিয়েছে।কারন অনেকেরই ধারণা সেখানে নাম তুলতে পারলেই পরের বার থেকে আন্তর্জাতিক স্পনসর মিলবে। পুজো কমিটিগুলির হাতে সময় বেশি নেই,তাই কাজ দ্রুত শেষ করার ব্যাপারে জোর দেওয়া হচ্ছে।কারা আগে পুজোর কাজ শেষ করতে পারে সেই নিয়েই তোড়জোড় চলছে।

Green Crackers: এবারের পুজোয় বাজি ফুটাতে পারবেন কী? এই রাজ্যে কোন বাজি তৈরির ছাড়পত্র দেওয়া হল দেখুন

চলতি মাসের ২৫ তারিখ এবারের মহালয়া পড়েছে। ওই দিন থেকেই পুজোর উদ্বোধন শুরু করার কথা জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই মতোই কাজ এগোচ্ছিল। কিন্তু ইউনেস্কোর প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন তিন সপ্তাহ পরে তাঁরা দলবল নিয়ে ফের আসছেন। আর তাতেই পুজোর উদ্যোক্তারা আগে কাজ শেষ করার লক্ষ্যে নেমে পড়েছেন।কোন কোন পুজোর উদ্যোক্তারা আগে কাজ শেষ করতে পারে এখন সেটাই দেখার।

এ বিষয়ে গিরিশ পার্ক চোরবাগান সর্বজনীনের পুজোকর্তা জয়ন্ত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন ২০ তারিখের মধ্যে কাজ শেষ করে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর জন্য বাড়তি লোকজনকে কাজে লাগানো হচ্ছে। সমাজসেবী সঙ্ঘের পুজোকর্তা অরিজিৎ মৈত্র বলেছেন পাড়ার লোকের আপত্তি রয়েছে বলে রাতে মণ্ডপে কাজ বন্ধ রাখি আমরা। কিন্তু এখন থেকে রাতেও কাজ হবে।

এই বিষয়ে চেতলা অগ্রণীর পুজোকর্তা সমীর ঘোষও বলেছেন বৃহস্পতিবার থেকে তিন সপ্তাহ মানে ২২ তারিখ। হাতে সময় নেই বেশি।তাই কাজ দ্রুত শেষ করার ব্যাপারে জোর দেওয়া হচ্ছে। আশা করছি সময়ের মধ্যেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে। সের জন্যই জোড় কদমে তোড়জোড় শুরু করেছি।

ফোরাম ফর দুর্গোৎসব’ সূত্রের খবর শহরের বড় ৩০টি পুজোর মধ্যে কোনগুলি ইউনেস্কোর গন্তব্য তালিকায় রাখা হবে, তা নিয়ে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। এক ফোরাম সদস্যের কথায় তালিকায় থাকার জন্য অনাকেই নেতা মন্ত্রীদের কাছে তদ্বির শুরু করেছেন। আর এই হুড়োহুড়ির বড় কারণ হল ইউনেস্কোর পা পড়লেই পরের বার থেকে আন্তর্জাতিক স্পনসরের হাতছানি মিলবে।

ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শাশ্বত বসু যদিও বলেন অনেকেই কাজ শেষ করে উঠতে পারবেন বলে মনে হয় না। ‘ সুরুচি সঙ্ঘের’ পুজো কর্তা কিংশুক মৈত্রেরও দাবি দ্রুত কাজ শেষ করার জন্য চাপ তো দিচ্ছি, কিন্তু হবে বলে মনে হচ্ছে না। ‘বাগবাজার সর্বজনীন দুর্গোৎসব ও প্রদর্শনীর’ কর্তা গৌতম নিয়োগী বলেন-পঞ্চমীতেই আমাদের উদ্বোধন হয়। তার আগে কেউ এলে কাঠামোর বেশিকিছু দেখাতে পারব বলে মনে হয় না। কে আগে পুজোর কাজ দ্রুত শেষ করতে এখন সেটাই দেখার বিষয়।

Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Related Articles