মোদী সরকার পুজোর ‘উপহার’ হিসেবে আরও ৩ মাস বিনামূল্যে রেশন দিতে পারে

Free ration scheme 2022: ভারতে করোনার প্রথম ঢেউয়ের লাগামছাড়া বাড় বাড়ন্তের কারনে জন সাধারনের অবস্থা শোচনীয় হয়ে পড়েছিল। তাই দেশবাসীর কষ্টের কথা ভেবে কেন্দ্র সরকার গরীব কল্যান যোজনার অন্তর্গত বিনামূল্যে রেশন ব্যবস্থা চালু করেন। করোনা আবহে দেশের মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থার কথা ভেবেই কেন্দ্র সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

করোনার সময় আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষদের পরিবার পিছু ৫ কেজি করে খাদ্যশস্য সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে।প্রধানমন্ত্রী গরীর কল্যাণ অন্ন যোজনার কারনে দেশের ৮০ কোটি মানুষ উপকৃত হয়েছেন। দেশের মানুষের কথা ভেবে দফায় দফায় এই প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। করোনা সঙ্কটের জেরে ২০২০সালের এপ্রিল মাস থেকে এখনও দেশে বিনামূল্যে খাদ্যশস্য (Free ration scheme 2022) দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। তবে খুব শীঘ্রই সেই মেয়াদ শেষ হতে চলেছে।

Advertisement

বদলে গেলো উচ্চমাধ্যমিক অনলাইন রেজিস্ট্রেশনের সময়সীমা, একাধিক ভাগে ভাগ করা হল সময়সীমা

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে আগেই ঘোষণা করা হয়েছে আগামী 30 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিনামুল্যে রেশন (Free ration scheme 2022) দেওয়া হবে। অর্থাৎ গরিব কল্যাণ যোজনায় দেশের মানুষকে বিনামূল্যে খাদ্যশস্য দেওয়া বন্ধ করে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে আগামী মাস থেকে সাধারণ মানুষকে অর্থের বিনিময়ে রেশন থেকে খাদ্যশস্য নিতে হবে। পুজোর সময় এই সময়সীমা শেষ হওয়ার কথা।

Advertisement

তবে পুজোর উপহার হিসেবে কেন্দ্র সরকার হয়ত বিনামুল্যে রেশন (Free ration scheme 2022) ব্যবস্থার সময়সীমা বাড়াতে চলেছে। বিনামূল্যে রেশন ব্যবস্থা আরও ৩ মাস ধরে চালানো হতে পারে। ওয়াকিবহাল মহল সূত্রে খবর মোদী সরকার এমনই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। অর্থাৎ আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত কেন্দ্র সরকার প্রায় ৮০ কোটি ভারতীয়কে বিনামূল্যে চাল বা গম সরবরাহ করা জারি রাখতে পারে।

জয়েনিং এর শুরুতে পিএসসি ক্লার্কদের স্যালারি কত, কি কি সুবিধা পান, বেতন কিভাবে বাড়বে জানেন কি?

কেন্দ্রীয় সূত্র মারফত খবর খাদ্য মন্ত্ৰক ইতিমধ্যেই এই সময়সীমা বাড়ানোর জন্য অনুরোধ করেছে। বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক চাপ এবং কঠোর পরিস্থিতির কারণে বিনামূল্যে শস্য প্রদানের পরিমাণ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছিল অর্থ মন্ত্রক। খুব শীঘ্রই এই বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। এখনও পর্যন্ত এই প্রকল্পের পিছনে প্রায় ৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ হয়েছে। অর্থ মন্ত্রকের আশঙ্কা, এটি সরকারের উপর বিপুল আর্থিক চাপ সৃষ্টি করছে।

কেন্দ্রিয় সরকার যদি আরো প্রায় ৩-৬ মাসের জন্য এই কর্মসূচি এগিয়ে নিয়ে যায়, তবে এর জন্য প্রায় ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করতে হবে মোদি সরকারকে। যদিও এই বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার সময়সীমা বাড়িয়ে দেওয়া সম্বন্ধে অফিশিয়ালি কিছু জানায়নি কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক। তবে অর্থনীতিবিদদের একাংশের মত এই প্রকল্প চলতে থাকলে,দেশের অর্থনৈতিক পরিসংখ্যানে এর প্রভাব পড়তে পারে।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ২০২৩ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ করলো | Madhyamik Routine 2023

খাদ্য বন্টনের এই প্রকল্প ফলপ্রসু হলেও, এর জন্য সস্তা দামে বিপুল পরিমাণ শস্যের সরবরাহ প্রয়োজন। চলতি বছর খারাপ আবহাওয়ায় ফসলের ক্ষতি হয়েছে। তাছাড়া বিশ্ব বাজারের প্রভাবে রফতানি, আমদানির ক্ষেত্রে প্রভাব পড়েছে। দেশের বাজারে খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে। তাই এই খাদ্য বন্টন আর চালানো হলে এটি সরকারের উপর বিপুল আর্থিক চাপ সৃষ্টি করবে বলে অর্থ মন্ত্রকের আশঙ্কা।

বিনামুল্যে খাদ্যশস্য দেওয়ার মেয়াদ যদি আরও ৬ মাস বাড়ানো হয় তবে জন সাধারন উপকৃত হবে। কারন দেশের গরিব মানুষ করোনা ভাইরাসের সঙ্কট কাটিয়ে এখনও পুরোপুরি বের হতে পারেনি। আর্থিক অনটনের বোঝা এখনও বয়ে বেড়াচ্ছেন।তাই কেন্দ্রীয় সরকার যদি আরো ৩-৬ মাসের জন্য এই কর্মসূচি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে, তাহলে খুব ভাল হয়।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের ফলো করুন

 Google News | | টেলিগ্রাম চ্যানেলে

Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Related Articles