WB Govt Scholarship

CM WB Govt Scholarship: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরবরাই জনদরদি। পড়ুয়া থেকে শুরু করে গোটা রাজ্যের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নতির লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই একাধিক জনমুখি প্রকল্প চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে বিশেষ করে রাজ্যের পড়ুয়াদের সাহায্যের ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর জুড়ি মেলা ভার। পড়ুয়াদের জন্য কন্যাশ্রী, রুপোশ্রী, সবুজ সাথী থেকে শুরু করে স্টুডেন্টস ক্রেডিট(STUDENTS CREDIT CARD) কার্ড চালু করেছেন।

LPG Cylinder Business করে লাখপতি হতে পারেন, কিভাবে বিস্তারিত জানুন

মাধ্যমিক কিংবা উচ্চমাধ্যমিকের গণ্ডি পার হওয়া সাধারণ মানের ছাত্র- ছাত্রীরা স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন। এছাড়াও আরও এক ধাপ এগিয়ে রাজ্যের মেধাবী ছাত্র ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে আর্থিক সহায়তা প্রদানের সুবিধার্থে মুখ্যমন্ত্রীর মা, মাটি মানুষের সরকার ‘ স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ ‘ চালু করেছেন। ইতিমধ্যেই রাজ্যের প্রায় ৮ লক্ষ উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ পড়ুয়া স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ বা বৃত্তির টাকা পেয়েছেন।

Durga Puja Vastu Tips 2022: সামনেই দুর্গাপুজো নিজের অর্থভাগ্য খুলতে পুজোর আগে এই ৫ জিনিস বাড়িতে কিনে আনুন

মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর লক্ষ্য একটাই কিভাবে রাজ্যের মেধাবী পড়ুয়ারা উচ্চতর শিক্ষা অর্জন করে সমাজ জীবনে ভালো ভাবে প্রতিষ্ঠা পাবে। তাই উচ্চ শিক্ষা এবং পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিজেই নিজের ত্রান তহবিল থেকে ইতিমধ্যেই মেধাবী পড়ুয়াদের জন্য স্কলারশিপ (WB Govt Scholarship) দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিগত কয়েক বছর ধরে গোটা রাজ্যের প্রান্তিক দুঃস্থ মেধাবী ছাত্র- ছাত্রীরা এই স্কলারশিপের (WB Govt Scholarship) আর্থিক সাহায্য পাচ্ছেন। মুখ্যমন্ত্রীর নিজস্ব ত্রান তহবিল থেকে দেওয়া এই স্কলারশিপের নাম হল ‘নবান্ন স্কলারশিপ’। আর এই নামের পিছনেও বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। কারণ এই স্কলারশিপের আর্থিক সুবিধা মুখ্যমন্ত্রীর নিজস্ব ফান্ড অর্থাৎ তহবিল থেকে দেওয়া হয়।

Rules For Bike Riding durga pujo 2022: পুজো দোরগোড়ায়! পুজোতে বাইকে চেপে ঠাকুর দেখার প্ল্যান থাকলে কয়েকটি বিষয়

তার ওপর রাজ্যের প্রধান প্রশাসনিক ভবন নবান্ন থেকেই এই স্কলারশিপের টাকা যেমন দেওয়া হয়, তেমনি এই স্কলারশিপ (WB Govt Scholarship) পাওয়ার ক্ষেত্রে আবেদনকারী পড়ুয়াকে নবান্নেই আবেদন করতে হয়।তাই এই স্কলারশিপের এমন নাম রাখা হয়েছে। মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, কলেজের কোন পরীক্ষায় পাশ করে পরবর্তী ক্লাসে ভর্তি হয়েছে, এমন ছাত্রছাত্রীরা এই স্কলারশিপে আবেদন করতে পারেন।

  • এই স্কলারশিপে কত টাকা দেওয়া হয়?

নবান্ন স্কলারশিপে দুঃস্থ মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীকে নবান্ন মারফৎ এককালীন ১০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

  • আবেদন পদ্ধতি?

এই স্কলারশিপে একমাত্র অফলাইনেই আবেদন করা যাবে। এক্ষেত্রে অনলাইন প্রক্রিয়ায় আবেদনের কোনও সুযোগ নেই।আবেদনপত্র ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলি ছাত্রছাত্রীদের নবান্নের অফিসে জমা করতে হয়।

  • নবান্ন স্কলারশিপের জন্য কি যোগ্যতা প্রয়োজন?

১)আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে। পশ্চিমবঙ্গের স্কুল/কলেজ/ যে কোনো বোর্ড থেকে যারা পড়াশুনো করেছে তারাই আবেদনের যোগ্য।

২)মাধ্যমিক বা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ক্যাটাগরি অনুযায়ী ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

৩)আবেদনকারী পড়ুয়ার পারিবারিক বার্ষিক আয় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার মধ্যে হতে হবে।

  • এই স্কলারশিপ বা বৃত্তির আবেদনের ক্ষেত্রে কী কী নথি প্রয়োজন?

১)স্কলারশিপের আবেদনপত্র।

২) শেষ পরীক্ষার মার্কশিট।

৩)বর্তমান কোর্সে ভর্তির রশিদ।

৪)এন্ট্রান্স পরীক্ষায় দেওয়া রাঙ্ক কার্ড।

৫)ব্যাঙ্কের পাশ বই-র যাবতীয় তথ্য এবং পারিবারিক আয়ের প্রমান পত্র।

আবেদন পত্র পাঠানোর ঠিকানা: – The Assistant Secretary, Chief Minister’s Office, Nabanna, 325 Sarat Chatterjee Road, Howrah 711 102

আবেদনের শুরু বা শেষ তারিখ:- এই স্কলারশিপের আবেদনের কোনো নির্দিষ্ট তারিখ নেই।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের ফলো করুন

👍 Google News

👍 টেলিগ্রাম চ্যানেলে

By Sunita Mallick

আমি সুনিতা মল্লিক Webscte.in এ সকল প্রকারের চাকরি ও শিক্ষার খুঁটিনাটি খবর সহ এই সাইটে সরকারি প্রকল্প, গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.