BGMI Banned In India: তবে কি ভারতে নিষিদ্ধ হল BGMI গেম! জানেন কি আসল কারন কি ? জানুন

BGMI Banned In India: ভারতের সঙ্গে চিনের সম্পর্ক তিক্ত হওয়ার পরই বহু চিনা অ্যাপ ব্যান করা হয়েছিল। যার জেরে এ দেশে নিষিদ্ধ হয়েছিল জনপ্রিয় গেম PUBG।2020 সালে ভারতে পাবজি সহ একাধিক চিনা অ্যাপ ব্যান করা হয়। জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থেই অ্যাপগুলিকে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

গত বছর পাবজি মোবাইলের বিকল্প হিসেবে ভারতে লঞ্চ হয় ব্যাটলগ্রাউন্ডস মোবাইল ইন্ডিয়া।এরপর থেকেই ব্যাটলগ্রাউন্ড মোবাইল ইন্ডিয়া (BGMI) জনপ্রিয় হতে শুরু করে।কিন্তু এবার সরকারের তরফে গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে ব্যাটলগ্রাউন্ডস মোবাইল ইন্ডিয়া বা বিজিএমআই (BGMI Banned) গেমটিকে ব্লক করার নির্দেশ (BGMI Banned In India) দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

‘ব্যাটলগ্রাউন্ডস মোবাইল ইন্ডিয়া’ বা BGMI একটি অনলাইন মোবাইল গেম। সম্প্রতি এ দেশে তা নিষিদ্ধ (BGMI Banned In India)  ঘোষণা করেছে ভারত সরকার।কেন এই গেমটি ব্যান করা হয়েছে তা পরিষ্কার না হলেও, মনে করা হচ্ছে কিছু নিয়ম লঙ্ঘনের জন্যই এমনটা হয়েছে।এই অ্যাকশন গেম যে ভাবে বাচ্চাদের উপরে ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলছে, তার সমাধানসূত্র হিসেবে এই গেমটি ব্যান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি এ দেশেও গেমটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। আর তারপরেই ‘প্রহার’ নামে একটি অসরকারি সংগঠন (NGO) এই খেলা নিষিদ্ধ করার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।প্রহারের সভাপতি অভয় মিশ্র বলেন, ‘চলতি বছর ফেব্রুয়ারি থেকে, আমরা এই সত্যটি তুলে ধরেছি যে BGMI (BGMI Banned In India)  এবং নিষিদ্ধ PUBG এক এবং একই।

Advertisement

তথাকথিত নতুন অবতারে এসেছিল BGMI এবং কখনই তা আগের PUBG থেকে আলাদা ছিল না। এর পিছনে রয়েছে’টেনসেন্ট’ (Tencent)। ভারতের নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্বের স্বার্থে এই পদক্ষেপ খুবই জরুরি ছিল, এ জন্য আমরা ভারত সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ।প্রথম থেকেই প্রহার BGMI-কে ‘চিনা’ গেমের তকমা দিয়েছিল।

প্রহার নামের সংস্থাটি গত বেশ কিছুদিন ধরেই ভারতে BGMI গেমের অনুমতি নিয়ে সরকারের কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করে চলেছে।চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে, প্রহার তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৯ এ ধারায় চিনা অ্যাপ BGMI ব্লক করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক (MHA) এবং ইলেকট্রনিক্সক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রককে চিঠি লিখেছিল। সেখানে তারা দাবি করে এটি ভারতের সার্বভৌমত্ব, অখণ্ডতা, ভারতের প্রতিরক্ষা, রাষ্ট্রের নিরাপত্তা এবং জনশৃঙ্খলার ক্ষেত্রে হুমকি স্বরূপ।

কিন্তু ভারতে BGMI পরিচালনা করে দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক সংস্থা ‘ক্র্যাফটন’ (Krafton) তারা দাবি করেছিল। কোনও ভাবেই চিনা অংশীদারিত্বের অন্তর্গত নয় এই খেলা। বিশেষত করে টেনসেন্টের (Tencent) সঙ্গে এর কোনও যোগ নেই। সরকারের একটি সূত্র দাবি করেছে যে দেশের নিরাপত্তা এবং তথ্য ফাঁস সংক্রান্ত উদ্বেগের কথা মাথায় রেখেই ভারতে BGMI নিষিদ্ধ করা হয়েছে(BGMI Banned In India) ।

অভয় মিশ্র দাবি করেছেন তাঁরা গত মার্চ মাসে, টেনসেন্ট প্রতিষ্ঠাতা চিনা ধনকুবের পনি মা ( Pony Ma)-কে একটি খোলা চিঠি দিয়েছিলেন। সেখানে ভারতে BGMI-এর বর্তমান পরিচালক Krafton এবং এর আগে নিষিদ্ধ(BGMI Banned In India)  হওয়া PUBG-এর পরিচালকের মধ্যে গোপন আঁতাত বিষয়ে ১০টি প্রশ্নের উত্থাপন করা হয়েছিল। কিন্তু পনি মা কোনও রকম উত্তর দেননি।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর রাজ্যসভায় তাঁর ভাষণে কিছু সংবাদের দিকে ইঙ্গিত করে জানিয়েছেন, একটি শিশু তার মাকে হত্যা করেছে PUBG-র প্রভাবে। যদিও PUBG মোবাইল গেম ইতিমধ্যেই ভারতে নিষিদ্ধ। তিনি রাজ্যসভায় জানিয়েছেন নিষিদ্ধ অ্যাপগুলি নতুন নাম নিয়ে ফের হাজির হচ্ছে। এটি উদ্বেগের বিষয়।

তিনি আরও বলেন যে এ ধরনের খেলাগুলি পরীক্ষা করে দেখার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে পাঠানো হয়েছে।২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ভারতে PUBG নিষিদ্ধ হয়।দশ মাসের মধ্যে Krafton গেমটিকে Battlegrounds Mobile India বা BGMI নামে ফের চালু করেছে। BGMI হল চিনা অ্যাপগুলির মধ্যে সবচেয়ে বড় যেটি একই বৈশিষ্ট্য নিয়ে ফের লঞ্চ করা হয়েছে।

সরকারের কাছ থেকে ব্যান করার নির্দেশ পাওয়ার পরই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার কিছু সময় পর গেমটিকে প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে গুগলের তরফ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়। কিন্তু অ্যাপ স্টোর থেকে সরানোর পরে অ্যাপল এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেনি। গুগল পরিষ্কার করে দিয়েছে, সরকারের তরফে এমন নির্দেশ আসার পরেই গেমটিকে সরাতে তারা বাধ্য হয় (BGMI Banned In India) ।

Probir Biswas

আমি প্রবীর বিশ্বাস Webscte.in এ সকল প্রকারের স্কলারশিপ সহ বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য, সাথে টেক নিউজ, বিনোদন, ব্যবসা-বানিজ্যের ওপরও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আপডেট দিয়ে থাকি, ধন্যবাদ।

Related Articles