Aadhar Card Loan

Aadhar Card Loan: বর্তমানে আধার কার্ড জন জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে মোবাইলে সিম কার্ড নেওয়া, সব ক্ষেত্রে প্রয়োজন আধার কার্ড। তাই মোটামুটিভাবে আধার কার্ড সবার কাছেই থাকে।যে কোনও সরকারি কিংবা বেসরকারি ক্ষেত্রের যে কোনও কাজে আধার যথেষ্ট উপকারী একটি বিষয়। শুধু তাই নয়, আধার কার্ডের সঙ্গে প্যান কার্ড, মোবাইল নম্বর, পিএফ অ্যাকাউন্ট, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট লিঙ্ক করানো এখন বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে সরকার।

আধার কার্ডের ( Aadhar Card Loan) গুরুত্ব দেশের সর্বক্ষেত্রে। ব্যাঙ্ক থেকে হাসপাতাল এমনকী কোভিড টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রেও আধার কার্ড বাধ্যতামূলক। ১২ ডিজিট থাকা এই আইডেন্টিটি কার্ডের গুরুত্ব তাই অনেক।আধার কার্ড এখন জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ হয়ে গিয়েছে।আধার এই মুহূর্তে দেশের অন্যতম বড় প্রমান্য নথি।বর্তমানে আধার শুধু একটু প্লাস্টিক কার্ড নয়, এমনকি শুধু পার্সে রেখে দিলাম এমনটাও নয়।

বর্তমানে এই আধার কার্ডের মাধ্যমে যে ‘লোন’ (Loan) নেওয়া যায় তা অনেকেই হয়ত জানেন না।সাধারণত কোনও কারণে আর্থিক সঙ্কট তৈরি হলেই ঋণ নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে। অথচ সেই জরুরি অবস্থায় ঋণ নিতে যে ভাবে ছোটাছুটি করতে হয়, তাতে কার্যত নাকাল হতে হয় মানুষকে। কিন্তু অনেকেই জানেন না, কোনও ঝক্কি ছাড়াই ঋণ নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। আর তার জন্য প্রয়োজন শুধুমাত্র আধার কার্ড (Aadhar Card Loan)।

আর কোনও নথির দরকার নেই। ব্যাঙ্কে গিয়ে শুধু আধার কার্ড দেখালেই পাওয়া যাবে ঋণ।আপনি আপনার আধার কার্ডের মাধ্যমে লাখ টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারবেন। ভাবছেন তো এটা সম্ভব কি? আধার কার্ডের মাধ্যমে লোন কিন্তু কীভাবে? এই প্রতিবেদনে বিস্তারিত ভাবে এই বিষয়ে আলোচনা করা হল। কীভাবে আধার কার্ডের মাধ্যমে লোন পাবেন জানুন (Aadhar Card Loan) ।

আপনার আধার কার্ডের (Aadhar Card Loan ) সাহায্যে আপনি কোনও ঝামেলা ছাড়াই ব্যক্তিগত ঋণ (Personal Loan)-এর জন্য আবেদন করতে পারেন। স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক ও কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্ক সহ অনেক ব্যাঙ্ক তাদের গ্রাহকদের আধার কার্ডে ঋণ দেয়।তবে কেবল আধার কার্ড থাকলেই যে সবাই ঋণের জন্য বিবেচিত হবেন এমনটা নয়। এই ঋণ নেওয়ার আগে আপনার ক্রেডিট স্কোর জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ক্রেডিট স্কোর ৭৫০ বা তার বেশি হয়, তাহলে যে কোনও গ্রাহক সহজেই আধার কার্ডের মাধ্যমে ঋণের আবেদন করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে আপনি আরও সুবিধা পাবেন।ব্যাঙ্কগুলি এই ধরনের ক্রেডিট বা সিবিল স্কোর থাকলে কম সুদে ঋণ দেয়। সেই ক্ষেত্রে বেশিরভাগ ব্যাঙ্ক ও ফিন্যান্স কোম্পানি কেওয়াইসির পরে সহজেই ব্যক্তিগত ঋণ অনুমোদন করে।

কীভাবে পাবেন এই ঋণ?

১. যে ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিতে চান, সেই ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করুন।আপনি ব্যাঙ্কের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমেও ব্যক্তিগত ঋণের জন্য আবেদন করতে পারেন।

২. আবেদন করার পরই আপনার মোবাইলে একটি OTP আসবে। সেটা সংশ্লিষ্ট জায়গায় দিয়ে দিন।

৩. এরপর ব্যক্তিগত ঋণের অপশনে আবেদন করতে হবে।

৪. আপনার জন্ম তারিখ ও ঠিকানা-সহ ঋণের পরিমাণ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য লিখুন।

৫. এরপর প্যান কার্ড ও আধার কার্ডের কপি আপলোড করতে হবে।

৬. ব্যাঙ্ক আপনার তথ্যগুলি খতিয়ে দেখে অনুমোদন দিলেই ঋণ পেয়ে যাবেন।

তবে মনে রাখবেন, আপনার সিবিল স্কোর বা ক্রেডিট স্কোর কিন্তু এই ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা গ্রহণ করে।সেখানে কোনও সমস্যা বা রেটিং কম থাকলে আপনি এই ঋণের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.